সমাজসেবা অধিদফতর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৬ এপ্রিল ২০১৮

শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র

  • সরকারের শিশুবান্ধব নীতি এবং সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির আওতা প্রসারের লক্ষ্যে সুবিধা বঞ্চিত ও ঝুকিঁতে থাকা বিপন্ন শিশুদের সুরক্ষা ও তাৎক্ষণিক সেবা প্রদানের জন্য সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় বিশ্বব্যাংকের আর্থিক (আইডিএ ক্রেডিট) সহায়তায় গৃহীত সার্ভিসেস ফর চিলড্রেন এ্যাট রিস্ক (স্কার) শীর্ষক প্রকল্পটি জুন ২০১৬ তে সমাপ্ত হয়।
  • জুলাই ২০১৬ থেকে প্রকল্পের আওতায় পরিচালিত শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রসমূহের কার্যক্রম বাৎসরিক ভিত্তিতে সরকারের সাহায্য মঞ্জুরি (কল্যাণ অনুদান) খাতে বরাদ্দকৃত অর্থ দ্বারা চলমান রয়েছে।
  • গাজীপুর, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল, সিলেট, রংপুর, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর, বরগুনা, কক্সবাজার ও জামালপুর জেলায় স্থাপিত ১২টি শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র’র মাধ্যমে ০৬ থেকে অনুর্ধ্ব ১৮ বছরের পথ শিশু, কমর্জীবি শিশু, মাতা-পিতার স্নেহ বঞ্চিত, গৃহকর্মে নিয়োজিত, পাচার থেকে উদ্ধার, হারিয়ে যাওয়া, নির্যাতনের শিকার হয়ে ঝুঁকিতে থাকা বিপন্ন শিশুদের সেবা্ প্রদান করে পরিবার বা অন্য কোন প্রতিষ্ঠানে পুনঃএকীকরণ/পুনর্বাসন নিশ্চিত করা হয়।
  • কেন্দ্রসমূহে পৃথক ভবনে ১০০ ছেলে শিশু ও ১০০ মেয়ে শিশুর আবাসন ব্যবস্থা রয়েছে। কেন্দ্রগুলো দিবাকালীন/রাত্রিকালীন/সার্বক্ষনিক আশ্রয় সেবা প্রদান করছে। প্রতিটি কেন্দ্রে আবাসন সুবিধাসহ খাদ্য, প্রয়োজনীয় পোষাক, স্বাস্থ্যসেবা, মনো-সামাজিক সহায়তা প্রদান, নিয়মিত শরীর চর্চা ও খেলাধূলার ব্যবস্থা রয়েছে।
  • নিবাসী শিশুদের বছরে ০৪ (চার) সেট পোষাক, ০২ (দুই) সেট উৎসব পোষাক এবং শীতবস্ত্র প্রদান করা হয়। এছাড়া স্কুলগামী শিশুদের জন্য স্কুলের ড্রেস কোড অনুযায়ী পোষাক সরবরাহ করা হয়। কেন্দ্রের প্রতিটি শিশুকে সকাল ও বিকালের নাস্তাসহ ০২ (দুই) বেলা খাবার পরিবেশন করা হয়। জাতীয় দিবস, ধর্মীয় উৎসবসহ বিশেষ দিবসে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়।
  • আনুষ্ঠানিক শিক্ষার আওতায় নিবাসী শিশুর উপযুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ব্যবস্থা রয়েছে। সক্ষমতার ভিত্তিতে কেন্দ্রে অবস্থানরত শিশুদের উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা প্রদান করা হয়। সেবার আওতায় আসা শিশুদের সিদ্ধান্ত গ্রহণ, আবেগীয় ও মানসিক চাপে টিকে থাকা, কার্যকরি যোগাযোগ, সমঝোতা ইত্যাদি জীবন দক্ষতা উন্নয়নমূলক শিক্ষা প্রদান করা হয়।
  • ১৪ বছর উর্ধ্ব শিশুদেরকে আগ্রহ ও সক্ষমতার ভিত্তিতে স্থানীয় চাহিদা নিরূপণপূর্বক বিউটিফিকেশন, টেইলারিং, ব্লক-বাটিক, পেইন্ট/আর্ট (ব্যানার/সাইনবোর্ড), জুতা তৈরি, অটোমোবাইল, ইলেক্ট্রনিক্স ইত্যাদি প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। প্রশিক্ষণ শেষে শিশুদের সমাজের মূল ধারার সাথে একীভূত করার লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে শিক্ষানবিস হিসেবে ঝুঁকিবিহীন কাজে নিয়োজিত করা হয়।
  • আগস্ট ২০১২ থেকে মার্চ ২০১৮ পর্যন্ত ১২ টি শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের মাধ্যমে মোট ৮৮০৫ জন (৪৩০০ জন বালক ও ৪৫০৫ জন বালিকা) শিশুকে সেবা প্রদান করা হয়েছে।এর মধ্যে ৬৭৯০ জন (৩৩৭৭ জন ছেলে ও ৩৪১৩ জন মেয়ে)  জন শিশুকে তাদের পরিবার, আত্মীয় কিংবা অন্য কোন প্রতিষ্ঠানে পুনঃএকীকরণ বা পুনর্বাসন করা হয়েছে। বর্তমানে কেন্দ্রসমূহে মোট ২০১৫ জন (৯২৩ জন ছেলে ও ১০৯২ জন মেয়ে)শিশু অবস্থান করছে।

 


Share with :

Share with :

Facebook Facebook