সমাজসেবা অধিদফতর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৫ মে ২০১৫

চাইল্ড সেনসিটিভ সোস্যাল প্রটেকশন ইন বাংলাদেশ (সিএসপিবি)

প্রটেকশন অব চিলড্রেন এ্যাট রিস্ক (পিকার) প্রকল্পের ধারাবাহিকতায় সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতায় সমাজসেবা অধিদফতর কর্তৃক ‘চাইল্ড সেনসিটিভ সোস্যাল প্রটেকশন ইন বাংলাদেশ’ (সিএসপিবি) শীর্ষক প্রকল্পের কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। United Nations Development Assistance Framework (UNDAF) চিহ্নিত ২০টি জেলা যথাক্রমে নিলফামারী, কুড়িগ্রাম, রংপুর, গাইবান্ধা, জামালপুর, সিরাজগঞ্জ, নেত্রকোণা, সুনামগঞ্জ, সিলেট, হবিগঞ্জ, সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, বরগুনা, পটুয়াখালি, ভোলা, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি, বান্দরবন এবং কক্সবাজার জেলায় এ প্রকল্পের কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। জানুয়ারি ২০১২ থেকে শুরু হওয়া এ প্রকল্পের কার্যক্রম ডিসেম্বর ২০১৬ পর্যন্ত চলমান থাকবে।

 

প্রকল্পের দীর্ঘমেয়াদী উদ্দেশ্যঃ

২০১৬ সালের মধ্যে নির্বাচিত ২০টি জেলার নারী, শিশু ও যুবসম্প্রদায় কার্যকর সামাজিক সুরক্ষা নীতিসমূহের দাবি এবং উন্নত সেবা প্রাপ্তির মাধ্যমে নির্যাতন, অবহেলা, শোষণ ও পাচার বিলোপ সাধনে সক্ষম হবে।

 

প্রকল্পের স্বল্প মেয়াদী উদ্দেশ্যঃ

  1. দরিদ্র এবং নির্যাতিত পরিবারের নারী, শিশু ও যুবসম্প্রদায় এর সামাজিক সুরক্ষামূলক কার্যক্রমে প্রবেশাধিকারের উন্নতি সাধনের মাধ্যমে নির্যাতন, সহিংসতা এবং শোষণের প্রকোপ কমিয়ে আনা;

 

  1. শিশু অধিকার সনদ ও আমত্মর্জাতিক চুক্তির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ আইনী কাঠামো এবং বিশেষ শিশু নীতি থেকে সকল শিশু বিশেষকরে দুঃস্থ শিশু (পথশিশু, চা-বাগান শ্রমিকদের শিশু, বিভিন্ন চা বাগানে কর্মরত শিশু) উপকৃত হবে;

 

  1. প্রকল্প এলাকার জনগোষ্ঠীর মাধ্যমে সহিংসতা, নির্যাতন এবং শোষণ প্রতিরোধে ইতিবাচক ও সহায়ক সামাজিক আদর্শের অনুশীলন, উন্নয়ন ও দৃঢ়ীকরণ করা।

 

প্রকল্পের কার্যক্রমঃ

পথশিশুদের সামাজিক সুরক্ষা ও পরিবারে পুনঃএকীকরণঃ

পথশিশুদের সামাজিক সুরক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ঢাকা, চট্টগ্রাম এবং বরিশাল বিভাগীয় শহরে ছেলেদের জন্য একটি এবং মেয়েদের জন্য একটি Drop In Center (DIC), চারটি Emergency Night Shelter (ENS), ২০ টি Child Friendly Space (CFS) এবং পাঁচটি Open Air School (OAS) পরিচালনা করা হচ্ছে। সহযোগী সংস্থা ‘অপরাজেয় বাংলাদেশ’ এর মাধ্যমে জানুয়ারি ২০১২ খ্রি: থেকে এ পর্যন্ত মোট ১০৪২৩ জন শিশুকে সামাজিক Drop In Center (DIC) এর মাধ্যমে সামাজিক সুরক্ষা সেবা প্রদানের পাশাপাশি ৪৮৬ জন শিশুকে পরিবারে পুনঃএকীকরণ করা হয়েছে। এছাড়া, ৪,৬৭১ জন শিশুকে Emergency Night Shelter (ENS), ৮,২১৮ জন শিশুকে Child Friendly Space (CFS) এবং ৪,০১৩ জন শিশুকে Open Air School (OAS) এর মাধ্যমে প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান করা হয়েছে। এ সকল সেবা কার্যক্রমের অন্যতম উদ্দেশ্য হচ্ছে পথশিশুসহ সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিপদাপন্ন অবস্থা থেকে তুলে এনে সামাজিক সুরক্ষা সেবা প্রদান করা এবং কারিগরি শিক্ষা, বিকল্প কর্মসংস্থান কিংবা শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা প্রদানের মাধ্যমে পরিবারে ও সমাজে পুনএকীকরণ করা। 

 

শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা কার্যক্রমঃ

‘আমাদের শিশু’ মডেল অনুযায়ী সিলেট বিভাগের বিভিন্ন জেলার চা বাগান এবং ২৪ এপ্রিল ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ সাভার ট্রাজেডি ‘রানা পস্নাজা’ ভবন ধ্বসে বিশেষকরে প্রকল্প এলাকার নিহত পরিবারের ১৭৯ জনসহ মোট  ২,৬৯২ জন মাতৃপিতৃহীন ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুকে ‘শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা’ প্রদান করা হয়েছে। শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা কার্যক্রমের মূল শর্তসমূহ হচ্ছে, শিশুওে স্কুল নিশ্চিত করা, বাল্যবিবাহ থেকে সুরক্ষা এবং শিশু শ্রম থেকে সুরক্ষা।

 

Child Helpline-1098:

সিএসপিবি প্রকল্পের সহযোগী সংস্থা ‘অপরাজেয় বাংলাদেশ’ এর মাধ্যমে পুরাতন ঢাকা’র ৮ টি থানার ২০ টি ওয়ার্ডে বিপদাপন্ন দুঃস্থ ও অসহায় শিশুদের জন্য টোল ফ্রি Child Helpline কার্যক্রম বাসত্মবায়ন করা হচ্ছে। এ কার্যক্রমের মাধ্যমে এ যাবৎ মোট ৮০৩৪ জন বিপদাপন্ন দুঃস্থ ও অসহায় শিশুকে প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া, টোল ফ্রি Child Helpline 1098 এ T&T Land Phone এর অনুরূপ সকল মোবাইল ফোন অপারেটর থেকে টোল ফ্রি কল সুবিধা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এ কার্যক্রম সম্প্রসারণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

 

Transformation of Institutional Care:

প্রতিষ্ঠানসমূহে শিশু বান্ধব পরিস্থিতির উন্নয়ন এবং কেস ব্যবস্থাপনার আলোকে শিশুদের সেবাদান ও পারিবারিক কিংবা সামাজিক পুনঃএকীকরণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সমাজসেবা অধিদফতরের নয়টি প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের শিশু বান্ধব পরিস্থিতি উন্নয়নের লক্ষ্যে উপকরণ বিতরণ, বিভিন্ন কর্মসূচি আয়োজনে সহায়তা প্রদান, সেবাদানকারীদের দক্ষতা বৃদ্ধির  লক্ষ্যে কার্যক্রম অব্যহত রয়েছে।

 

Case Management Database:

বিদ্যমান শিশু সুরÿা কার্যক্রম পরিবীÿণের লÿÿ্য সিএসপিবি প্রকল্প কেস ম্যানেজমেন্ট ডাটাবেজ প্রতিষ্ঠায় সমাজসেবা অধিদপ্তরকে প্রয়োজনীয় কারিগরি সহযোগিতা প্রদান করছে। ইতোমধ্যে সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা), ভোলা ও কক্সবাজার, কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র, যশোর, মহিলা ও শিশু-কিশোরী হেফাজতীদের নিরাপদ আবাসন কেন্দ্র, সিলেট এবং সহযোগী সংস্থার একটি ড্রপ-ইন সেন্টারে ডাটাবেজ-এর পরীÿামূলক কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। সমাজসেবা অধিপ্তরের সংশিস্নষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহে পর্যায়ক্রমে কেস ম্যানেজমেন্ট ডাটাবেজ প্রতিষ্ঠার লÿÿ্য সিএসপিবি প্রকল্প প্রয়োজনীয় সহায়তা অব্যহত রাখবে।

 

চাইল্ড প্রটেকশন নেটওয়ার্কঃ

শিশু সংবেদনশীল সমাজ প্রতিষ্ঠার লÿÿ্য UNDAF চিহ্নিত ২০টি জেলা এবং নির্বাচিত উপজেলাসমূহে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে প্রধান করে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ‘চাইল্ড প্রটেকশন নেটওয়ার্ক’ কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া, চাইল্ড প্রটেকশন নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ইউনিয়ন পরিষদের সংরÿÿত আসনের মহিলা সদস্যকে সভাপতি করে ‘সমাজভিত্তিক শিশু সুরÿা কমিটি’ গঠন করা হচ্ছে। ‘সমাজভিত্তিক শিশু সুরÿা কমিটি’র মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে, শিশুদের সামাজিক সুরÿা নিশ্চিত করা এবং বিদ্যমান সামাজিক সেবাসমূহে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের অভিগম্য্যতার উন্নয়ন ঘটানো।

 

প্রাতিষ্ঠানিক সÿমতা বৃদ্ধিঃ

সিএসপিবি প্রকল্পের আওতায় এ পর্যমত্ম ৫৭২ জন সমাজকর্মীকে ২ সপ্তাহের মৌলিক সমাজসেবা (BSST) এবং ৫২৯ জন সমাজকর্মীকে ৪ সপ্তাহের পেশাগত সমাজসেবা (PSST) বিষয়ে প্রশিÿণ প্রদান করা হয়েছে হয়েছে। এছাড়া, ১৩৭ জনকে ‘কেস ব্যবস্থাপনা’, ১৫৩ জনকে ‘শিশু উন্নয়ন’ ২৭ জনকে জীবন দÿতা বিষয়ে ‘প্রশিÿক প্রশিÿণ’ প্রদান করা হয়েছে। 

 

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতায় এ অধিদফতর কর্তৃক ইউনিসেফ-এর সহায়তায় ‘চাইল্ড সেনসিটিভ সোস্যাল প্রটেকশন ইন বাংলাদেশ (সিএসপিবি) শীর্ষক প্রকল্পের কার্যক্রম জানুয়ারি ২০১২ থেকে ডিসেম্বর ২০১৬ মেয়াদে ২০টি UNDAF ভূক্ত জেলায় বাসত্মবায়িত হচ্ছে। পথশিশুদের সামাজিক সুরক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে Drop In Center (DIC), Emergency Night Shelter (ENS), Child Friendly Space (CFS) এবং Open Air School (OAS) কার্যক্রম এর মাধ্যমে এ পর্যমত্ম ১০,৯৫৬ জন শিশুকে আশ্রয়, উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা, মনোসামাজিক সেবা, প্রাথমিক স্বাস্থসেবা, কারিগরি দক্ষতা ব„ৃদ্ধসহ ৩৭৮ জন শিশুকে পরিবারে একীকরণ করা হয়েছে। এছাড়া, ‘আমাদের শিশু’ মডেল অনুযায়ী সিলেট বিভাগের বিভিন্ন জেলার চা বাগানসহ অন্যান্য এলাকায় মোট ১২১৬ জন মাতৃপিতৃহীন ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুকে ‘শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা’ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া, ২৪ এপ্রিল ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ সাভার ট্রাজেডি ‘রানা পস্নাজা’ ভবন ধ্বসে বিশেষকরে প্রকল্প এলাকার নিহত পরিবারের ১৭৯ জন শিশুকে ‘শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা’ সেবা প্রদান করা হয়েছে।

 

Child Helpline-1098: সিএসপিবি প্রকল্পের সহযোগী সংগঠনের মাধ্যমে পুরাতন ঢাকা’র ৮ টি থানায় বিপদাপন্ন দুঃস্থ ও অসহায় শিশুদের জন্য Child Helpline কার্যক্রম বাসত্মবায়ন করা হচ্ছে। এ কার্যক্রমের মাধ্যমে এ যাবৎ মোট ৮০৩৪ জন বিপদাপন্ন দুঃস্থ ও অসহায় শিশুকে প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান করা হয়েছে। 

 

Transformation of Institutional Care: এ প্রকল্পের মাধ্যমে নয়টি প্রতিষ্ঠানে Pilot কর্মসূচির আওতায় নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানসমূহে প্রাতিষ্ঠানিক সেবার জন্য Minimum Standard of Care অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানের সেবার মান উন্নয়ন, সেবাদানকারীদের সক্ষমতা বৃদ্ধি, প্রতিটি শিশুর জন্য কেস ম্যানেজমেন্ট পদ্ধতি গ্রহণ, শিশুদের জীবন দক্ষতা উন্নয়ন এবং উপযুক্ত শিশুদের পরিবারে অথবা সমাজে পুনঃএকত্রীকরণ করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় কর্মসূচি পরিচালনা করা হচ্ছে। সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা), ভোলা ও কক্সবাজার, কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র, যশোর, মহিলা ও শিশু-কিশোরী হেফাজতীদের নিরাপদ আবাসন কেন্দ্র, সিলেট এবং সহযোগী সংস্থার একটি ড্রপ-ইন সেন্টারে কেস ম্যানেজমেন্ট ডাটাবেজ-এর পরীক্ষামূলক কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

 

চাইল্ড প্রটেকশন নেটওয়ার্ক ও সক্ষমতা বৃদ্ধি: তৃণমূল পর্যায়ে শিশু সংবেদনশীল সামাজিক সুরক্ষা ব্যবস্থা উন্নয়নের লক্ষ্য জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রধান করে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ‘চাইল্ড প্রটেকশন নেটওয়ার্ক’ কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বৃদ্ধির নিমিত্ত এ পর্যমত্ম ৫৭২ জন সমাজকর্মীকে ২ সপ্তাহের মৌলিক সমাজসেবা (BSST) এবং ৫২৯ জন সমাজকর্মীকে ৪ সপ্তাহের পেশাগত সমাজসেবা (PSST) বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।

 

প্রটেকশন অব চিলড্রেন এ্যাট রিস্ক (পিকার) প্রকল্পের ধারাবাহিকতায় ইউনিসেফ-এর আর্থিক ও কারিগরি সহায়তায় সমাজসেবা অধিদপ্তর ‘চাইল্ড সেনসিটিভ সোস্যাল প্রটেকশন ইন বাংলাদেশ’ (সিএসপিবি) শীর্ষক প্রকল্পের কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। প্রকল্পটির মেয়াদ জানুয়ারি ২০১২ থেকে ডিসেম্বর ২০১৬ পর্যন্ত।

 

প্রকল্পের দীর্ঘমেয়াদী উদ্দেশ্য

  • ২০১৬ সনের মধ্যে নির্বাচিত ২০টি জেলা’র নারী, শিশু ও যুবসম্প্রদায় কার্যকর সামাজিক সুরক্ষা নীতিসমূহের দাবি এবং উপযুক্ত সেবা প্রাপ্তির মাধ্যমে নির্যাতন, অবহেলা, শোষণ ও পাচার বিলোপ সাধনে সক্ষম হবে।

 

প্রকল্পের স্বল্পমেয়াদী উদ্দেশ্য

  • সামাজিক সুরক্ষামূলক কার্যক্রমে দরিদ্র এবং নির্যাতিত পরিবারের নারী, শিশু ও যুবসম্প্রদায়ের অভিগম্যতার উন্নতি সাধনের মাধ্যমে নির্যাতন, সহিংসতা এবং শোষণের প্রকোপ কমিয়ে আনা;
  • শিশু অধিকার সনদ ও আন্তর্জাতিক চুক্তির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ আইনী কাঠামো এবং বিশেষ শিশু নীতি গ্রহণ ও দেশের সকল শিশু বিশেষ করে দুস্থ শিশুদের কল্যাণ সাধন;
  • প্রকল্প এলাকায় নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা, নির্যাতন এবং শোষণ প্রতিরোধকল্পে ইতিবাচক ও সহায়ক সামাজিক আদর্শের অনুশীলন, উন্নয়ন ও সুদৃঢ় করা।

প্রকল্পের অর্থায়ন (মূল টিপিপি অনুযায়ী)

 

মূল টিপিপি

সংশোধিত টিপিপি (২০১৪ খ্রি:)

অর্থায়নের উৎস

বাজেট (লক্ষ টাকায়)

বাজেট (লক্ষ টাকায়)

বাংলাদেশ সরকার

৩৯.২৪

৩৯.৫৯

ইউনিসেফ

১২,৫০৭.৫৬

১২,৫০৭.৫৬

মোট

১২,৫৪৬.৮০

১২,৫৪৭.১৫

 

প্রকল্প এলাকা

United Nations Development Assistance Framework (UNDAF) চিহ্নিত ২০টি জেলা। জামালপুর, নেত্রকোনা, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, কক্সবাজার, সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, সিরাজগঞ্জ, নীলফামারী, কুড়িগ্রাম, রংপুর, গাইবান্ধা, সুনামগঞ্জ, সিলেট, হবিগঞ্জ, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা জেলা। এছাড়া ঢাকা, চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগীয় শহরে পথশিশুদের অধিকার সুরক্ষা ও উন্নয়নের নিমিত্ত প্রকল্পের কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

 

প্রকল্পের কার্যক্রম

 

পথশিশুদের সামাজিক সুরক্ষা ও পরিবারে পুনঃএকীকরণ

ঢাকা, চট্টগ্রাম এবং বরিশাল বিভাগীয় শহরে মোট ছয়টি Drop In Center (DIC), চারটি Emergency Night Shelter (ENS), ২০ টি Child Friendly Space (CFS) এবং পাঁচটি Open Air School (OAS) পরিচালনা করা হচ্ছে। জানুয়ারি ২০১২ থেকে ফেব্রুয়ারি ২০১৫ পর্যন্ত মোট ১৪,৮৮৪ জন পথশিশুকে Drop In Center (DIC) এর মাধ্যমে সামাজিক সুরক্ষা সেবা প্রদানের পাশাপাশি ৭৫৮ জন শিশুকে পরিবারে পুনঃএকীকরণ করা হয়েছে। এছাড়া ৫,২২৯ জন শিশুকে Emergency Night Shelter (ENS), ৪৫৭৮ জন শিশুকে Child Friendly Space (CFS) এবং ২৩,৬১৭ জন শিশুকে Open Air School (OAS) প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান করা হয়েছে। ‘অপরাজেয় বাংলাদেশ’ প্রকল্পের সহযোগী সংস্থা হিসেবে কাজ করছে।

 

শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা কার্যক্রম

সিলেট, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ এবং রংপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলা এবং চা-বাগানের মাতৃ-পিতৃহীন ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুসহ ২৪ এপ্রিল ২০১৩ সাভার ট্রাজেডির ‘রানা পস্নাজা’ ভবন ধ্বসে বিশেষ করে প্রকল্প এলাকার নিহত পরিবারের ১৩৩ জন শিশুসহ মোট ৪,২৭৫ জন শিশুকে ‘শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা’ প্রদান করা হয়েছে। শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা কার্যক্রমের মূল শর্তসমূহ হচ্ছে, বিদ্যালয়ে শিশুর নিয়মিত উপস্থিতি, বাল্যবিবাহ থেকে সুরক্ষা এবং শিশুশ্রম থেকে সুরক্ষা প্রদান। নির্বাচিত শিশুকে মাসিক ২,০০০ টাকা করে ১৮ মাসের মোট ৩৬,০০০ টাকা ১২,০০০ টাকার তিনটি কিস্তিতে প্রদান করা হয়। 

 

Child Helpline-1098

সিএসপিবি প্রকল্পের সহযোগী সংস্থা ‘অপরাজেয় বাংলাদেশ’ এর মাধ্যমে পুরনো ঢাকা’র ৮ টি থানার ২০ টি ওয়ার্ড’এ বিপদাপন্ন, দুস্থ ও অসহায় শিশুদের জন্য টোল ফ্রি Child Helpline কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ কার্যক্রমের মাধ্যমে এপর্যন্ত মোট ১৩,২৯৯ জন বিপদাপন্ন, দুস্থ ও অসহায় শিশুকে প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া, টোল ফ্রি Child Helpline 1098 এ T&T Land Phone এর অনুরূপ সকল মোবাইল ফোন অপারেটর থেকে টোল ফ্রি কল সুবিধা নিশ্চিত করার লক্ষ্যেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া, দেশব্যাপী এ কার্যক্রম সম্প্রসারণের জন্য সমাজসেবা অধিদফতরে সেন্ট্রালাইজ কল সেন্টার (সিসিসি) স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে

 

Transformation of Institutional Care:

প্রকল্পের অধীন নিম্নোক্ত নয়টি প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে

বিভাগ

প্রতিষ্ঠানের নাম

ঢাকা

শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র (বালক), টঙ্গী, গাজীপর

শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র (বালিকা), কোনাবাড়ি, গাজীপুর

শেখ রাসের দুঃস্থ শিশু প্রশিক্ষণ ও উন্নয়ন কেন্দ্র, টুঙ্গীপাড়া, গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

সেফ হোম, সিলেট

সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা), কক্সবাজার

সিলেট

সেফ হোম, সিলেট

বরিশাল

সেফ হোম, বরিশাল

সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা), ভোলা

খুলনা

শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র (বালক), পুলেরহাট, যশোর

 

শিশুবান্ধব পরিস্থিতির উন্নয়ন, কেস ব্যবস্থাপনার আলোকে সেবাদান, বিদ্যামন সেবার মান উন্নয়ন ও শিশুদের পারিবারিক কিংবা সামাজিক পুনঃএকীকরণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে পরীক্ষামূলক কার্যক্রমের আওতায় নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানে বিনোদন উপকরণ, সেবাদানকারীদের সক্ষমতা বৃদ্ধি, শিশুদের জীবন দক্ষতা উন্নয়ন, কেস ব্যবস্থাপনা এবং প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোগত সংষ্কারের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

 

Case Management Database

বিদ্যমান শিশু সুরক্ষা কার্যক্রম পরিবীক্ষণের লক্ষ্যে কেস ম্যানেজমেন্ট ডাটাবেজ তৈরিতে সমাজসেবা অধিদফতরকে প্রয়োজনীয় কারিগরি সহযোগিতা প্রদান করছে। ইতোমধ্যে ভোলা ও কক্সবাজার সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা), যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র, সিলেট, বরিশাল এবং চট্টগ্রাম মহিলা ও শিশু-কিশোরী হেফাজতীদের নিরাপদ আবাসন কেন্দ্র এবং সহযোগী সংস্থা অপরাজেয় বাংলাদেশ-এর ঢাকাস্থ একটি ড্রপ-ইন সেন্টারে কেস ম্যানেজমেন্ট ডাটাবেজ-এর পরীক্ষামূলক কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

 

চাইল্ড প্রটেকশন নেটওয়ার্ক

শিশুসংবেদনশীল সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে UNDAF চিহ্নিত ২০টি জেলা এবং নির্বাচিত উপজেলাসমূহে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে প্রধান করে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ‘চাইল্ড প্রটেকশন নেটওয়ার্ক’ কমিটি গঠন করা হয়েছে। শিশু আইন ২০১৩ অনুমোদিত হওয়ায় জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ‘শিশু কল্যাণ বোর্ড’-এর সক্ষমতা বৃদ্ধিতে প্রকল্পের অধীন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

 

প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বৃদ্ধি

শিশুবিষয়ক কাজে সমাজকর্মীদের জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সিএসপিবি প্রকল্প ইত্যেমধ্যে সমাপ্ত পিকার প্রকল্পের মাধ্যমে এ পর্যন্ত ১,৯৫৮ জন সমাজকর্মীকে দুই সপ্তাহের মৌলিক সমাজসেবা (BSST) এবং চার সপ্তাহের পেশাগত সমাজসেবা (PSST) প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ২৫৪ জন সেবাদানকারীকে ‘শিশু উন্নয়ন’, ৪৪৭ জন কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন সমাজকর্মীকে ‘শর্তযুক্ত অর্থসহায়তা কার্যক্রম ও কেস ব্যবস্থাপনা’, ১৮ জন কর্মকর্তা ও সমাজকর্মীকে অনলাইন কেস ম্যানেজমেন্ট বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।

 

৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সিএসপিবি প্রকল্পের প্রজেক্ট স্টিয়ারিং কমিটির সভায় ইউনিসেফ ফান্ড প্রাপ্তির বাস্তবতার আলোকে ২০১৬ খ্রিস্টাব্দ জন্য সিএসপিবি প্রকল্পের সার্বিক কার্যক্রম এবং আর্থিক সহায়তার পরিমান সুনির্দিষ্ট করে টিপিপি’র দ্বিতীয় সংশোধনী আনার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। 


Share with :
Facebook Facebook